About Us

রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজে স্বাগতম

সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

উন্নত আদর্শ, দেশপ্রেম ও মনুষ্যত্ব বিকাশের লক্ষ্যে নারী শিক্ষাপ্রসারের মহান ব্রত নিয়ে ১৯৮৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজ।ব্যতিক্রমী এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি বন্দর নগরী ভৈরব এর বাণিজ্যিক কোলাহল থেকে দূরে এবং শহরতলির নিরিবিলি মনোরম পরিবেশে অবস্থিত।

জমির পরিমাণ: ২ একর

অধীতশাখা ও বিষয়:

উচ্চ মাধ্যমিক- বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ২০টি বিষয় পড়ানো হয়।

স্নাতক (পাস)- বিএ, বিএসএস, বিবিএস ১১ টি বিষয় পড়ানো হয়।

স্নাতক (সম্মান)-ইংরেজি, সমাজকর্ম, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবস্থাপনা, ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান মোট ৫টি বিষয়ে সম্মান কোর্স পড়ানো হয়।

শিক্ষক সংখ্যা – ৪৭ জন।

কর্মচারী সংখ্যা- ১৪ জন।

অবকাঠামো – ২(দুই)টি ত্রিতল পাকা একাডেমিক ভবন ও ১(এক)টি টিনের ঘর।

পাঠাগারে পুস্তক সংখ্যা- ৪২২১টি।

মেয়েদের মসজিদ-১টি|

কলেজ ক্যানটিন- ১টি|

হোস্টেল – ৫(পাঁচ) তলা পাকা সুরম্য হোস্টেল; যেখানে ‍দূরদূরান্তের ৬০০ ছাত্রী অবস্থান করে। কলেজটি কিশোরগঞ্জ জেলার সর্ববৃহৎ নারী শিক্ষা বিদ্যাপীঠ হিসেবে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

ইতিহাস

ভৈরবের বিশিষ্ট সৃজনশীল সমাজকর্মী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হলের প্রাক্তন জিএস বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ রফিকুল ইসলাম এর উদ্যোগে এবং তাঁর পরিবার ও ভৈরবের শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতায় ১৯৮৭ সালে রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজের আত্মৃপ্রকাশ ঘটে। প্রতিষ্ঠাকালে কলেজটির ছাত্রী সংখ্যা ছিল মাত্র ৮২ জন। প্রতিষ্ঠাকালীন অধ্যক্ষ ছিলেন প্রাক্তন সরকারি কর্মকর্তা মরহুম আবুল হাশেম।কলেজ পরিচালনা পরিষদের সদস্য, শিক্ষক কর্মচারীদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই এই কলেজ আকর্ষণীয় ফলাফল করতে সক্ষম হয়েছে। প্রায় প্রতিবারই পাশের হারের দিক থেকেই এই কলেজের অবস্থান ছিল কিশোরগঞ্জ জেলার শীর্ষে। এইচএসসি পরীক্ষায় ধারাবাহিক সাফল্য, শিক্ষা উপযোগী সুন্দর প্রাকৃতিক পরিবেশ ও সাংস্কৃতিক কাযর্ক্রমে অংশগ্রহণের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০০২ সালে কলেজটি জাতীয় পযার্য়ে শ্রেষ্ঠ কলেজের পুরস্কার অজর্ন করে। এই বছরই কলেজের মানবিক বিভাগের দুইজন ছাত্রী ঢাকা বোর্ডের মেধা তালিকায় যথাক্রমে ৯ম ও ১৬তম স্থান অধিকার করে। ২০০৪ সালে এই কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের সম্মানীত শিক্ষক জনাব মোঃ শহীদুল্লাহ জাতীয় পযার্য়ে শ্রেষ্ঠ প্রভাষক পুরস্কার অজর্ন করেন। ২০০৬ সালে এই কলেজে স্নাতক পাস ও অনার্স কোর্স চালু হয়।

ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)

মোট-২০২২, একাদশ-৭৮৭, দ্বাদশ-৭৩০, স্নাতক (পাস) ১ম বর্ষ-৩৮, ২য় বর্ষ- ৪৩, ৩য় বর্ষ-৩৭, স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষ- ২০০, ২য় বর্ষ-৯২, ৩য় বর্ষ- ৫৫, ৪র্থ বর্ষ-৪০ ।

পাশের হার

উচ্২০১১-৯০.৩১%|চ মাধ্যমিক: ৮৩%, স্নাতক: ৯৭%, অনার্স: ৯৯%

 

অর্জন

জাতীয় পযার্য়ে শ্রেষ্ঠ কলেজের পুরস্কার অজর্ন, কিশোরগঞ্জ জেলায় উচ্চ মাধ্যমিক ফলাফলে একাধিকবার প্রথম হওয়ার গৌরব। সবর্শেষ ২০১১ সাল। পাশ্ববর্তী ৬টি জেলার ছাত্রী অভিভাবকদের আস্থা অর্জন।

ভবিষৎ পরিকল্পনা

পাশের হার ১০০% এ উন্নীতকরণ, তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষা দান, দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রীদের আত্মকর্মসংস্থানমূলক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা।

OBSERVATION SPECTACLE

To spread quality education in a congenial atmosphere Rafiqul Islam Womens College was established in 1987. Now it is one of thebest colleges in the area. It runs HSC, Degree (pass) and Honours level courses. In HSC Level Science, Humanities and Business Studies are abailable here. The college provides Honours coures on Social work, Accounting, Management, Political Science and English. The College was awarded as nationally recognised best college in Bangladesh in 2002.